বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:২১ পূর্বাহ্ন
Uncategorized

নায়কের হাতাহাতি সস্তা প্রচার

জমজমাট ডেস্ক
  • আপডেট সময় : রবিবার, ১২ জুন, ২০২২

জমজমাট ডেস্ক 

বিখ্যাত হতে বা মানুষের নজর কাড়ার অনেক পথ রয়েছে। ভানু বন্দ্যোপাধ্যায় তার কৌতুকে বলেছিলেন—‘তুমি যদি বিখ্যাত হতে চাও তাহলে লাল রঙের নেংটি পরে রাস্তায় নেমে যাও। দেখবা সবাই তোমাকে চিনবে।’ তেমনি হয়তো বিখ্যাত হতে চেয়েছেন ‘তালাশ’ সিনেমার টিমও। কিন্তু এতে করে চলচ্চিত্র শিল্পটাকে ‘নেংটি’ পরিয়ে দিচ্ছে না তো?

আগামী শুক্রবার (১৭ জুন) মুক্তি পাবে ‘তালাশ’ সিনেমা। এতে নবাগত চিত্রনায়ক আদর আজাদের সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন চিত্রনায়িকা শবনম ইয়াসমিন বুবলী। এটি পরিচালনা করছেন তরুণ নির্মাতা সৈকত নাসির। গতকাল মধ্য রাতে একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ পায়। ভিডিওটি দেখে ধারণা করা হচ্ছে, এটি কোনো টক শোয়ের। যেখানে এক ব্যক্তির সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন নবীন চিত্রনায়ক আদর আজাদ।

ভিডিওতে দেখা যায়, এক ব্যক্তি আদর আজাদকে উদ্দেশ্য করে বলেন—পাঁচ মিনিট আগে আদর নিচে নেমেছে। সে তো দায়িত্বশীল না। এখনো ক্যারেক্টারের ভেতরেই আছে। দেখেন তার চেহারা।

সৈকত নাসির বলেন, তার মানে ও ড্রাগ নেয়? এতে সায় দেয় ওই ব্যক্তি। আর তাতেই আদর আজাদ চটে গিয়ে কষিয়ে চড় ও লাথি মারেন। যেখানে বুবলীও শামিল হন; তিনি বিষয়টি নিয়ে তর্কে জড়ান। তবে আদরকেও থামানোর চেষ্টা করতে দেখা যায়। এমন সময় পরিচালক সৈকত নাসির বলেন, ক্যামেরা বন্ধ করা উচিত। যাই হোক, নায়কের এমন কাণ্ডে নেটিজেনদের অনেকে আহত হয়েছেন।

কোনো অনুষ্ঠানে এমন ঘটনা ঘটলে স্বাভাবিকভাবে অন্যরা দৌড়ে এসে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু সেটের একটি লোকও এগিয়ে আসেনি। এটা যে পরিকল্পিত তা পরিষ্কার! তা ছাড়া ভিডিওটি দেখে মনে হচ্ছে, এটি কোনো অনুষ্ঠানের সেট নয়, অনুষ্ঠানের নামও নেই। ব্যাকগ্রাউন্ডের দেওয়ালে সিনেমার পোস্টার সাঁটানো। এ আলোচনায় কোনো উপস্থাপকও ছিলেন না। আর যদি এমন ঘটনা ঘটেও থাকে তা হলে বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়ায় কেন প্রকাশ পেলো?

এ বিষয়ে নির্মাতা সৈকত নাসিরের সঙ্গে যোগাযোগ করেন এই প্রতিবেদক। আলাপের শুরুতে তিনি বলেন, ‘এটি চিত্রনাট্যেরই একটি অংশ।’ যদিও পরক্ষণেই তিনি বলেন, ‘না না, বিষয়টি নিয়ে এখনি কিছু বলতে চাই না। আগামী ১৫ জুন সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানাব।’

এখন বিষয়টি নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে। এটা আপনারা প্রচার হিসেবে নিচ্ছেন কিনা? জবাবে সৈকত নাসির বলেন, ‘ভিডিওটি আমরা নিজেরা পাবলিশ করিনি। যে করছে সে থার্ড পার্সন; আমাদের টিম থেকে করা হয়নি।’ তা হলে কী কারণে এই ভিডিওর বিষয়ে কিছু বলছেন না? উত্তরে এই নির্মাতা বলেন, ‘সিনেমা নিয়ে এখন মানুষ কথা বলছেন। হোক সেটা নেগেটিভ বা পজিটিভ, বলুক না! অসুবিধা কি!’

হাতাহাতির সময়ে যারা উপস্থিত ছিলেন তারা সবাই সিনেমাটির সঙ্গে জড়িত। বিষয়টি যদি নিছক সিনেমার দৃশ্যও হয়ে থাকে তাহলে কেন নির্মাতা পরিষ্কার করছেন না? দুইয়ে দুইয়ে চার মিলিয়ে বলা যেতেই পারে, সিনেমার প্রচারের জন্যই এই কৌশল অবলম্বন করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

এর আগে সিনেমা মুক্তির আগেই আলোচনায় আসার জন্য প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়াকে এমন নাটক সাজাতে দেখা গিয়েছিল। আর সৈকত নাসির সেই জাজের সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে পা রাখেন। তিনি এমন কাজ করবেন এটাই স্বাভাবিক—এমনটা বলছেন কেউ কেউ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
© All rights reserved © 2018 jamjamat.net
ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট : উইন্সার বাংলাদেশ