শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০১:১৪ অপরাহ্ন
Uncategorized

‘আমরা ভালোবাসতে এসেছি, ভালোবাসা পেতে এসেছি’

জমজমাট ডেস্ক
  • আপডেট সময় : বুধবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২০

ক্রাউন এন্টারটেইনমেন্ট এর প্রযোজনায় দুর্গাপূজা উপলক্ষে বিশেষ টেলিভিশন কাহিনীচিত্র ‘বিজয়া’ নির্মাণ করায় নির্মাতা আবু হায়াত মাহমুদ, গল্পকার শোয়েব চৌধুরী ও অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশাকে মন্দিরে নিয়ে বলি দেয়ার হুমকি দিয়েছে অরুপ বনিক সহ বেশ কয়েক জন ফেসবুক ব্যবহারকারী। এছাড়াও সনাতন ধর্ম ও ইসলাম বিরোধী একটি চক্র অশালীন মন্তব্য করে হত্যার হুমকি দেয়। ‘বিজয়া’ কাহিনীচিত্রে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন নন্দিত অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। এতে তিশার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ইরফান সাজ্জাদ। শুটিংয়ের কয়েকটি স্থিরচিত্র সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করলে বেশ কয়েকটি ফেসবুক আইডি থেকে পরিচালক আবু হায়াত মাহমুদ, নুসরাত ইমরোজ তিশা ও গল্পকার শোয়েব চৌধুরীকে হত্যার হুমকি দেয়। শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে মুক্তি প্রতীক্ষিত ‘বিজয়া’ নামের একটি নাটকের মাধ্যমে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার অভিযোগ উঠেছে। তাই অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশাসহ চারজনকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন লিটন কৃষ্ণদাসের পক্ষে আইনজীবী সুমন কুমার রায়। এদিকে এই নোটিশের প্রেক্ষিতে নাটকটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ক্রাউন এন্টারটেইনমেন্ট পক্ষ থেকে ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছে।

আমরা লক্ষ করছি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ক্রাউন এন্টারটেইনমেন্ট এর প্রযোজনায় নির্মিত নাটক ‘বিজয়া’ ঘিরে নানা ধরনের বিভ্রান্তি উস্কানিমূলক কথাবার্তা ও উশৃঙ্খলা ছড়ানো হচ্ছে। অথচ হিন্দু সম্প্রদায়ের বড় ধর্মীয় উৎসব দূর্গা পূজাকে সার্বজনীন উৎসবে পরিণত করার মহতী উদ্দেশ্য আমরা এই নাটকটির পাশাপাশি অনেকগুলো নাটক নির্মাণ করেছি। কিন্তু আামাদের এই আন্তরিকতা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করে অকারণেই নৈরাজ্য ছড়ানো হচ্ছে। যা খুবই দুঃখজনক ও অনাকাঙ্ক্ষিত। এই নাটকের রচয়িতা, নির্মাতা, শিল্পী ও কলাকুশলীদের প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। যা কোন ভাবেই প্রত্যাশিত নয়। বন্ধুগণ আমরা মানুষকে সুস্থ বিনোদন দিতে এসেছি। বাংলা নাটককে পৃষ্টপোষকতা করতে এসেছি। করোনার সংকটকালে বাংলাদেশের অধিকাংশ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান যখন নিজেদেরকে গুটিয়ে নিয়েছেন তখন ক্রাউন এন্টারটেইনমেন্টই কেবল আর্থিক ঝুঁকি উপেক্ষা করে একের পর এক নাটক প্রযোজনার মাধ্যমে এই সেক্টরকে সচল রাখার অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে বদ্ধ পরিকর। ইনশাআল্লাহ ক্রাউনের এই প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

যেহেতু হিন্দু ধর্মের অনুসারীরা ‘বিজয়া’ নাটকটি না দেখেই এবং এ নাটকের গল্প সম্পর্কে সামান্যতম ধারণা না পেয়েই যথেষ্ট অপপ্রচার চালাচ্ছেন। এবং হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতাদেরকে আমরা আমাদের অফিসে এসে নাটকটি দেখার পর এটার প্রচার করা যাবে কি যাবে না সে বিষয়ে তাদের মতামত দেওয়ার অনুরোধ করার সত্ত্বেও অগ্রাহ্য করেছেন। এ কারণে ক্রাউন এন্টারটেইনমেন্ট সিদ্ধান্ত নিয়েছে আসন্ন দুর্গা পূজায় ‘বিজয়া’ সহ ক্রাউন প্রযোজিত কোন নাটকই প্রচার করবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পাশাপাশি ভবিষ্যতে আর কখনোই দুর্গাপূর্জা কেন্দ্রীক কোন নাটক ক্রাউন প্রযোজনা করবে না। এবং নিয়মিত নাটক নির্মাণের ক্ষেত্রেও হিন্দু নির্মাতাদের সুযোগ দেওয়ার ক্ষেত্রে কঠোর সাবধানতা অবলম্বন করবে।

বাংলাদেশের মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠদের দেশ। এখানে সাম্প্রাদায়িক সম্প্রীতি বিদ্যমান। মুসলমান কখনোই সাম্প্রাদায়িকতা ও জঙ্গীবাদকে কখনোই প্রশ্রয় দেয় না। বঙ্গবন্ধুর এই সোনার বাংলাদেশে সাম্প্রাদায়িকতার স্থান নেই। এ কারণেই মুসলমান কখনোই হানাহানি কিংবা ধর্মান্দতায় যুক্ত হয় না। ক্রাউন এন্টারটেইনমেন্ট অত্যন্ত বেদনার সাথে দুর্গাপূজা কেন্দ্রীক আয়োজন থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করলো। আমরা হানাহানি ছড়াতে আসিনি। আমরা ভালোবাসতে এসেছি, ভালোবাসা পেতে এসেছি।

লেখক: তাজুল ইসলাম, ক্রাউন এন্টারটেইনমেন্ট ডেপুটি সিইও।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
© All rights reserved © 2018 jamjamat.net
ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট : উইন্সার বাংলাদেশ