রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ১২:৪৩ পূর্বাহ্ন

শিল্পী সমিতির নির্বাচনে মাহমুদ কলির সভাপতি প্রার্থিতা নিয়ে সংশয়!

জমজমাট ডেস্ক
  • আপডেট সময় : বুধবার, ২৭ মার্চ, ২০২৪

জমজমাট প্রতিবেদক

শাকিব খান, মৌসুমী, ফেরদৌস, অনন্ত জলিলসহ বেশ কয়েকজন নিপুণের প্যানেল থেকে সভাপতি প্রার্থী হতে রাজি হননি। শেষ পর্যন্ত সভাপতি খুঁজে পান এই নায়িকা। সংবাদ সম্মেলন করে জানান, নব্বই দশকের জনপ্রিয় নায়ক মাহমুদ কলি শিল্পী সমিতির নির্বাচনে তার প্যানেল থেকে সভাপতি হিসেবে নির্বাচন করবেন। তবে তার প্রার্থিতা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে।

মাহমুদ কলি দীর্ঘদিন ধরে সমিতির আজীবন সদস্য ছিলেন। নির্বাচন উপলক্ষ্যে প্রকাশিত ভোটার তালিকায় তাকে সাধারণ সদস্য দেখানো হয়েছে। সমিতির গঠনতন্ত্রের ৫ (গ) অনুযায়ী আজীবন সদস্যরা নির্বাচন করতে পারবেন না। করতে হলে তাকে আজীবন সদস্য পদত্যাগ করে সাধারণ সদস্য হতে হবে।

এ ইস্যুতে বলা হচ্ছে, আজীবন সদস্যপদ থেকে আবার সাধারণ সদস্য পদে ফেরত যেতে হলে ইসি কমিটির মিটিংয়ে উত্থাপনের মাধ্যমে পাশের নিয়ম থাকলেও এ ক্ষেত্রে তার ব্যত্যয় ঘটেছে।

শিল্পী সমিতির ২০২২-২৩ মেয়াদের কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয় সম্পাদক জয় চৌধুরী বলেন, ২ বছর মেয়াদে কিংবা সবশেষ তিনটা মিটিংয়ের তিনটাতেই আমি ছিলাম সেখানে মাহমুদ কলি সাহেবের আজীবন সদস্যপদ থেকে সাধারণ সদস্য হওয়ার জন্য আবেদন করেছেন তা শুনেনি। এ ধরণের আলোচনা হয়নি কোনো মিটিংয়ে।

গেলো কমিটির সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চন ও সাধারণ সম্পাদক নিপুণ আক্তারকে এ ইস্যুতে বক্তব্য জানার জন্য বেশ কয়েকবার ফোন করা হয়। তাদের দুজনের ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া গিয়েছে। জানা গেছে, ইলিয়াস কাঞ্চন বুধবার (২৭ মার্চ) ওমরা হজ পালনের উদ্দেশ্যে দেশের বাইরে যাচ্ছেন।

এবারের নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু। সদস্য হিসেবে আছেন প্রযোজক ও নির্মাতা এ জে রানা ও বি এইচ নিশান। প্রধান নির্বাচন কমিশনার ব্যস্ত থাকায় এ প্রসঙ্গে কথা বলেন এ জে রানা। তিনি বলেন, ‘ভোটার তালিকায় আমরা তাকে (মাহমুদ কলি) সাধারণ সদস্য হিসেবে পেয়েছি। তাই আইন আনুযায়ী তার প্রার্থিতা বাতিলের সুযোগ নেই। কোনো অনিয়ম বা ভুল হয়ে থাকলে সেটার দায়ভার শিল্পী সমিতির আগের কমিটির। তারা কীভাবে পাশ করেছে, তা তো আমরা জানি না।’

কোনো অনিয়মের মাধ্যমে সাধারণ সদস্য হয়েছেন মানতে নারাজ মাহমুদ কলি। বর্ষীয়ান এ নায়ক বলেন, ‘আমি নিয়ম মেনেই শিল্পী সমিতিতে আবেদন করেছিলাম এবং তারা সেটা পাশ করেছে। আমার আগে যারা আজীবন সদস্য ছিল তারা যেভাবে নির্বাচন করেছে তাদের ক্ষেত্রে যে নিয়ম মানা হয়েছে আমার ক্ষেত্রেও তাই করা হয়েছে। কোনো ব্যত্যয় ঘটেনি’।

তবে কবে আবেদন করেছিলেন এবং কবে আজীবন সদস্য থেকে সাধারণ সদস্য হয়েছেন তা জানাতে রাজি হননি। উত্তরে তিনি বলেন, আপনি সমিতির অফিসে খোঁজ নিলেই জানতে পারবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ
© All rights reserved © 2018 jamjamat.net
ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট : উইন্সার বাংলাদেশ