রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ০৮:৩৯ অপরাহ্ন
Uncategorized

শিল্পমান বজায় রেখে কাজ করতে হবে: বড়দা মিঠু

জমজমাট ডেস্ক
  • আপডেট সময় : বুধবার, ২৯ জুলাই, ২০২০
ছবি: এম এ এইচ সাগর

রঞ্জু সরকার: মাহমুদুল ইসলাম মিঠু। শোবিজের সবাই ডাকেন ‘বড়দা মিঠু’। দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে অভিনয় করছেন। চলচ্চিত্রেও তিনি ‘ভয়ংকার’ ভিলেন। চলচ্চিত্রে এখন পর্যন্ত নিজের সেরা অভিনয় মালেক আফসারীর ‘অন্তর জ্বালা’য় ছবিতে তিনি কসাই চরিত্রে অভিনয় করে প্রশংসিত। ‘কত শত চরিত্রই তো করলাম। এই ছবির মতো কোনো চরিত্র ভবিষ্যতে করতে পারবো কি-না সন্দেহ।’ বড়দা মিঠু অভিনীত এবারের ঈদে বেশ কয়েকটি নাটক প্রচার হবে। এরমধ্যে রয়েছে ক্রাউন এন্টারটেইনমেন্ট প্রযোজিত আদিবাসী মিজান পরিচালিত সাত পর্বের ধারাবাহিক ‘তিন দৈত্য’।

ধারাবাহিকটি প্রসঙ্গে বড়দা বলেন, ‘আমি জামিল ও ফারুক ভাই দৈত্য চরিত্রে অভিনয় করেছি। আমি তামিল দৈত্য। একটি মিশনে তামিল যাবো ভুল করে বাংলাদেশে চলে আসি। জামিল ডিজিটাল জ্বীন গ্রামে ভন্ডামী শুরু করে। হাস্যরসে ভরপুর ক্রাউনের এ ধারাবাহিকটি।’

কবে থেকে শুটিং শুরু করেছেন? সাধারণ ছুটি কাটিয়ে ১লা জুন থেকে বিটিভির একটি সিরিয়ালের মাধ্যমে শুটিং শুরু করি। গত ঈদে ১৩টির মতো নাটক প্রচার হয়েছে। দর্শক রেসপন্সও ভালো ছিল। এবারের ঈদেও বেশ কয়েকটি নাটকে কাজ করেছি। তারমধ্যে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ক্রাউন এন্টারটেইনমেন্ট এর কয়েকটি কাজ করলাম। হাতে থাকা চলচ্চিত্রর কি অবস্থা? এরইমধ্যে শামীম আহমেদ রনি পরিচালিত ‘বিক্ষোভ’ ছবির ডাবিং শেষ করেছি। আরো কয়েকটি ছবির কাজ শেষ হয়েছে। দেশের অবস্থা স্বাভাবিক হলে হল খুললে ছবিগুলো মুক্তি পাবে। এছাড়াও সাতটি ছবি হাতে রয়েছে। করোনার কারণে সব কিছু থমকে গেছে।

করোনায় চলচ্চিত্র ও নাট্যঙ্গনের জন্য অনেক বড় ধরনের ক্ষতি হয়েছে। এই ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার উপায় কী? এ ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে অনেক সময় লাগবে। সবচেয়ে বড় কথা মানুষ কাজ করতে না পেরে মানসিক ভাবে অসুস্থ হয়ে গেছে। করোনা ভাইরাস আমাদের নাজেহাল করে দিছে। আসলে এটি হওয়া উচিৎ ছিল। সব কিছু কেমন যেন হয়ে যাচ্ছিল। করোনা আমাদের অনেক কিছু শিক্ষা দিচ্ছে। এই শিক্ষাটা ধরে রাখতে হবে। নিয়ম মেনে শুটিং করা সম্ভব নয়। এ মহামারী থেকে আমাদের একমাত্র আল্লাহ রক্ষা করতে পারে। চাহিদা থাকা সত্বেও চলচ্চিত্রে তুলনামূলক অনিয়মিত। কারণ কি? অনেক কাজ করতেছি। সবচেয়ে বড় কথা আগের মতো তো চলচ্চিত্র নির্মাণ হচ্ছে না। যার কারণে দিন দিন সিনেমার সংখ্যা কমে যাচ্ছে। আমি যে মাপের অভিনেতা সে অনুযায়ী সবার সাথে তাল মিলিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। সবাই আমাকে ভালোবাসে ও কাজে রাখে।

ওয়েব সিরিজ প্রসঙ্গে- যে কাজ বাবা-মা, ছেলে মেয়েকে নিয়ে দেখা যাবে না সেই কাজ না করাই ভালো। কলকাতা এ রকম অশ্লীল ওয়েব সিরিজ নির্মাণ করতে পারে। তবে আমাদের দেশে সংস্কৃতি একেবারে আলাদা। শালীনতার সাথে অনেক কিছুই দেখানো যায়। সেটা আস্তে আস্তে দেখাতে হবে। আমাদের দেশে অনেক ভালো গল্প আছে। শিল্পমান বজায় রেখেই কাজ করতে হবে। নাটক ও চলচ্চিত্র দুই মাধ্যমেই সমান তালে অভিনয় করতে চান। তবে বড় পর্দা নিয়ে আগ্রহটা একটু বেশি, সব অভিনেতাই চান বড় পর্দায় কাজ করতে। ছোট পর্দায় ছোট একটা গল্পে নিজের চরিত্রটা নিয়ে খুব বেশি কিছু করে দেখানোর সুযোগ থাকে না। চলচ্চিত্রে পরিকল্পনা ও আয়োজন বেশি। নিজের কাজটা নিয়ে খুশি থাকা যায়। -বললেন বড়দা মিঠু।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
© All rights reserved © 2018 jamjamat.net
ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট : উইন্সার বাংলাদেশ