বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:২০ পূর্বাহ্ন
Uncategorized

শক্তিমান অভিনেতা হুমায়ুন ফরীদির নবম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

জমজমাট ডেস্ক
  • আপডেট সময় : শনিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

বসন্তের দিন কী শুধুই রঙিন? না, এদিনেও ঝড়ে যায় ফুল। বিবর্ণ হয় ভালোবাসা। ২০১২ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি লাখো ভক্তের হৃদয়ে কান্না তুলে দিয়ে চলে গিয়েছেন দেশের খ্যাতিমান অভিনেতা হুমায়ুন ফরীদি। আজ তার নবম মৃত্যুবার্ষিকী। প্রকৃতিতে বসন্তের আবহন। রঙে রঙিন চারদিক। কিন্তু মনের কোণে জমে গেছে এক টুকরো মেঘ। সেই মেঘ ঝরে পরে অশ্রু হয়ে। কারণ আজ ১৩ ফেব্রুয়ারি হুমায়ুন ফরীদির মৃত্যু দিন। আজকের দিনে সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে যান দাপুটে এ অভিনেতা। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত অভিনয়ের সাথে যুক্ত ছিলেন তিনি। অভিনয়ের এই জাদুকর এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ‘মৃত্যুর মতো এতো স্নিগ্ধ, এতো গভীর সুন্দর আর কিছু নেই’। তিনি সেই ‘গভীর সুন্দর’-কে আলিঙ্গন করে পরপারে পারি জমিয়েছেন নয় বছর হয়ে গেল।

হুমায়ুন ফরীদির যৌবন উত্তাল দিন কেটেছে জাহাঙ্গীর নগরের সবুজ প্রাঙ্গণে। লেখাপড়ার বিষয় ছিল অর্থনীতি কিন্তু ভালোবাসতেন অভিনয়। সেই চাওয়াই তাকে দিয়েছে সফলতা। দেশের মঞ্চ নাটক, টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রের সফলতম অভিনেতা তিনি। অনেক ছবিতে তিনি দেখিয়েছেন কিভাবে মানিয়ে নিতে হয় চরিত্রের সঙ্গে। অভিনয়ের জন্য ২০০৪ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, ২০১৮ সালে মরণোত্তর একুশে পদক অর্জন করেন। অভিনয় আর হুমায়ুন ফরীদি মিলে মিশে একাকার। নক্ষতের সমান এ অভিনেতার মঞ্চ থেকে অভিনয় যাত্রা শুরু। এরপর ছোট ও বড়পর্দায় সব ক্ষেত্রেই দেখিয়েছেন অভাবনীয় সফল্য। তার সাবলীল অভিনয় মধ্যে দিয়ে মুগ্ধ করেছেন কোটি মানুষের হৃদয়। অভিনয় শিল্পের এক অনন্য কারিগর তিনি। অভিনেতা হিসেবে তিনি যেমন শক্তিমান, মানুষ হিসেবেও অনন্য। নায়ক-খলনায়ক হিসেবে অভিনয় করেছেন অসংখ্য সিনেমায়। নিজের চরিত্রকে অসাধারণভাবে ফুটিয়ে তুলতেন তিনি। দর্শকরাও হারিয়ে যেতেন সেই অভিনয়ের মায়া জালে। তিনি দাপটের সঙ্গে খল চরিত্রে অভিনয় করলেও ইতিবাচক চরিত্রেও তার অভিনয় ছিল অতুলনীয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
© All rights reserved © 2018 jamjamat.net
ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট : উইন্সার বাংলাদেশ