রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ০২:০৬ পূর্বাহ্ন
Uncategorized

‘চলচ্চিত্রের সুদিন ফেরাতে দরকার আজিজ মোহাম্মদ ভাই’

জমজমাট ডেস্ক
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৭ অক্টোবর, ২০২০

চলচ্চিত্রর সংকটকাল। দীর্ঘ দিন ধরেই জিমিয়ে জিমিয়ে চলছে এ মাধ্যমটি। ১৯৭১ সাল থেকে ২০২০, ৪৯ বছরে বারবার সম্ভাবনার দ্বার খুললেও পুরো সাফল্য দেখতে পারেনি ঢাকাই চলচ্চিত্র। এখনও সংকটের মধ্যেই পরে আছে। ২০০০ সালের পর থেকে ঢাকাই চলচ্চিত্রে শুরু হয় অশ্লীলতার যুগ। এ সময় থেকে দর্শক হারাতে শুরু করে ঢাকাই ছবি। চলচ্চিত্র নির্মাতারা জানান যুদ্ধ পরবর্তী সময় ঢাকাই চলচ্চিত্র প্রথম ধাক্কা খায় ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যার মধ্যে দিয়ে। এরপর স্বৈরী শাসনের সময় বারবার ধাক্কা খেয়েছে ইন্ডাস্ট্রি। যে রেশ রয়ে গেছে ২০২০ সালের শেষ প্রান্তে এসেও।

ঢালিউড চলচ্চিত্রে সফল প্রযোজক আজিজ মোহাম্মদ ভাই। ব্যবসার পাশাপাশি ৯০ এর দশকে আজিজ ভাই এমবি ফিল্মসের ব্যানারে চলচ্চিত্র প্রযোজনায় আসেন। চলচ্চিত্রের প্রতি ভালোবাসা থেকেই তিনি প্রযোজনায় আসেন। ৫০টির মত চলচ্চিত্র প্রযোজনা করেছেন আজিজ মোহাম্মদ ভাই। দেশের বিজ্ঞাপন জগতে গ্লামার আনতেও তার ভূমিকা ছিল। নিজের প্রতিষ্ঠান অলিম্পিক ব্যাটারির ‘আলো আলো বেশি আলো’ বিজ্ঞাপনে মিতা নূরের ঝলমলে উপস্থিতি তখন বেশ নজর কেড়েছিল। বর্তমানে আজিজ মোহাম্মদ ভাই সপরিবারে থাইল্যান্ডে থাকেন। আছেন চলচ্চিত্র থেকে অনেক দূরে। যে চলচ্চিত্র ভালোবেসে প্রযোজনায় আসেন আজিজ মোহাম্মদ ভাই সেই চলচ্চিত্রর সংকটকালে তিনি পাশে নেই। কিন্তু কেন? প্রশ্নটি রয়ে গেল। হয়তো তিনি এক দিন এর উত্তর দিবেন।

আজিজ ভাই সেই চিত্র প্রযোজক যিনি ঢালিউড, কলকাতাই নয় বরং বলিউডের সুপারস্টার থেকে মমতা কুলকার্নিদের কাজ করিয়েছেন। ঢাকাই চলচ্চিত্রে তার প্রস্থানের পর আর কেউ প্রযোজনায় এসে জায়গা করতে পারেননি। চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট অনেকেই বলছেন, আজিজ মোহাম্মদ ভাই একজন সফল প্রযোজক। থমকে যাওয়া চলচ্চিত্রর সোনালী দিন ফেরাতে ঢাকাই চলচ্চিত্রে আজিজ মোহাম্মদ ভাইকে খুবই প্রয়োজন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ
© All rights reserved © 2018 jamjamat.net
ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট : উইন্সার বাংলাদেশ