শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:৫৩ অপরাহ্ন
Uncategorized

এখনকার শিল্পীদের আত্মবিশ্বাসের অভাব: বাপ্পারাজ

জমজমাট ডেস্ক
  • আপডেট সময় : শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

নব্বই দশকের সুপারহিট চিত্রনায়ক বাপ্পারাজ। ১৯৮৬ সালে বাবা নায়করাজ রাজ্জাকের পরিচালনায় ‘চাঁপাডাঙ্গার বউ’ ছবিতে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্রে আগমন ঘটে তার। প্রয়াত কিংবদন্তি নায়করাজ রাজ্জাকের ছেলে হিসেবে নয়, বরং অভিনয় প্রতিভা দিয়েই চলচ্চিত্রে স্থায়ী আসন গেড়ে বসেছেন তিনি। ত্রিভুজ প্রেমের ছবিতে ব্যর্থ প্রেমিকের চরিত্রে বাপ্পারাজ অদ্বিতীয়। তবে বর্তমানে এই নায়ককে খুব একটা অভিনয়ে দেখা যায় না। তাকে শেষ দেখা গেছে ২০১৮ সালের জুনে মুক্তি পাওয়া সিয়াম-পূজা জুটির ‘পোড়ামন টু’ ছবিতে। এরপর আর ছবিতে অভিনয় করেননি। না করার কারণ হিসেবে জানান ভালো ছবির প্রস্তাব পাননি বলে এতদিন অভিনয়ে অনিয়মিত ছিলেন।

বিরতি ভেঙ্গে দেড় বছর বাদে আবার অভিনয়ে ফিরেছেন বহু ছবির ব্যর্থ প্রেমিক বাপ্পারাজ। তবে এবার তিনি পর্দায় হাজির হচ্ছেন পুলিশ কমিশনার হয়ে। সাফি উদ্দিন সাফি পরিচালিত ‘সিক্রেট এজেন্ট’ ছবির মাধ্যমে আড়াল ভেঙে ফিরলেন তিনি। সেখানেই বাপ্পারাজকে দেখা যাবে ঢাকার পুলিশ কমিশনারের চরিত্রে। যদিও ছবিতে খুব কম সময়ের জন্য হাজির হবেন তিনি। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে একাধিকবার তিনি পুলিশের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। তবে এবারই প্রথম পুলিশ কমিশনারের চরিত্রে অভিনয় করলেন।

তার কাছে জানতে চাই একজন বাপ্পারাজ কেন তৈরি হচ্ছে না? উত্তরে তিনি বলেন, বাপ্পারাজ তৈরি হচ্ছে না ঠিক তাছাড়া অনেকেই তৈরি হচ্ছে না। যে যার নিজের যোগ্যতায় আসে। যে একবার তৈরি হয় সে দ্বিতীয়বার তৈরি হয় না। শিল্পী তৈরির যে পরিচালক দরকার তার অভাব আছে আমাদের ইন্ডাস্ট্রিতে। যে আমাকে তৈরি করবে সে নিজেই যদি কিছু না জানে তাহলে আমাকে তো তৈরি করতে পারবে না। আমাদের মেধাবী নির্মাতার সংকট রয়েছে। আগে যারা সিনিয়র পরিচালক ছিলেন তারা শিল্পী তৈরি করতে পারতেন। কিন্তু এখনকার পরিচালকরা শিল্পী তৈরি করতে পারেন না। বরং আগের পরিচালকরা শিখাতেন একজন শিল্পীর চাল-চলন, আচার ব্যবহার কেমন হবে ইত্যাদি বিষয় শেখাতেন। এখনকার পরিচালকরা অভিনয় শেখাতে পারেন না বাকিগুলো কিভাবে শিক্ষা দিবেন? গুণী পরিচালকের বড় সংকট ইন্ডাস্ট্রিতে। একটি ছবি টেনে নেওয়ার মতো পরিচালক নেই। এখনকার পরিচালকরা স্টার নির্ভর। ছবিতে স্টার না থাকলে তারা ছবি চালাতে পারে না। যা পূর্বে ছিল না। স্টারের উপর নির্ভর করে ছবি চলে।

যোগ করে এ অভিনেতা আরও বলেন, এখনকার শিল্পীদের আত্মবিশ্বাসের অভাব। প্রতিপক্ষের সামনে নিজেকে দাঁড় করাতে ভীত তারা। ভাবে যদি আমার চেয়ে ওই নায়ক-নায়িকা বেশি হিট করে ফেলে। কিন্তু নিজেকে তৈরি করে না। পাশাপাশি হিংসাও একটি কারণ। নায়ক-নায়িকাদেরদের মধ্যে প্রতিযোগিতা, হিংসা সবই থাকতে পারে। সেটি কাজের বেলায় হবে। কিন্তু আমার মনে হয় এখন ব্যক্তি জীবনে হচ্ছে। অনেকেই দাবি করছেন সিনেমার মৌলিক গল্পর অভাব রয়েছে। এ প্রসঙ্গে কি বলবেন? মৌলিক গল্পের বরাবরই অভাব ছিল। সব দেশেই মৌলিক গল্পের অভাব রয়েছে। আগে কমার্শিয়াল ছবির অনুপ্রোরণা থেকে ছবি নির্মাণ করা হতো। তবে মাঝ দিয়ে কপি ছবি তৈরির প্রবণতা বেড়ে যায়। আবার কমার্শিয়াল ছবিতে পুরোপুরি মৌলিক দিলে সেভাবে টানে না। কিছু অভিনয়ের প্যাটান থাকে দর্শক সেটিই দেখতে চায় এটির বাহিরে গেলে তারা দেখে না। একেবারে মৌলিক হলে সেটা সিনেপ্লেক্স-এ চলে। এটার আলাদা এক শ্রেণির দর্শক রয়েছে। সবাই এ ছবিগুলো দেখে না। এ রকম ছবি নির্মাণ করতে গেলে লগ্নি ফেরত পাওয়া যায় না। লগ্নি না পেলে পরবর্তীতে প্রযোজক ঐ ছবিটি বানাবেন না। যার ফলে প্রযোজক সিনেমার প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
© All rights reserved © 2018 jamjamat.net
ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট : উইন্সার বাংলাদেশ