মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৪:৩৮ পূর্বাহ্ন
Uncategorized

সাদেক বাচ্চুর মৃত্যুতে শোবিজ তারকাদের শোক

জমজমাট ডেস্ক
  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বর্ষীয়ান অভিনেতা সাদেক বাচ্চু আজ সোমবার বেলা ১২টা ৫ মিনিটে মহাখালীর ইউনিভার্সাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (আয়শা মেমোরিয়াল হাসপাতাল) চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। সাদেক বাচ্চু অভিনয় জীবনে মঞ্চ, টেলিভিশন এবং চলচ্চিত্রে অসংখ্য শিল্পীর সঙ্গে কাজ করেছেন। এ প্রজন্মের প্রায় সব শিল্পী তার সহ-অভিনেতা ছিলেন। অধিকাংশ সময় এ সব শিল্পীর বাবার চরিত্রে অভিনয় করেছেন বরেণ্য এই অভিনেতা। তার এই মৃত্যু সহ-অভিনেতাদের বেদনাবিধুর করে তুলেছে। দুঃখ ভারাক্রান্ত মনে সাদেক বাচ্চুর স্মৃতিচারণ করে অনেকেই ফেসবুক পেইজে স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তেমনই কয়েকজন শিল্পী ও পরিচালকের ফেসবুক স্ট্যাটাস জমজমাট পাঠকদের জন্য তুলো ধরা হলো-

চিত্রনায়ক ওমর সানী লিখেন, সাদেক বাচ্চু একটা নাম, একজন অভিনেতা, একটা ইতিহাস। বহু বছর আগে হুমায়ূন ফরীদি ভাই যখন সুপারস্টার, তখন তার সিডিউল পাওয়া ভিশন দুষ্কর। উত্তম আকাশ দাদা এবং আমি চিন্তা করলাম কি করা যায়, বাচ্চু ভাই এর কাছে গেলাম, বাচ্চু ভাই বলল উত্তম তুমি আমার সাথে মজা করছো তোমার ছবিতে নিবা, ওমর সানির সাথে, আমি বললাম না বাচ্চু ভাই আপনি থাকবেন সেই আখেরি হামলা, মুক্তির সংগ্রাম রঙিন রংবাজ, আরো বহু ছবি এক সাথে জুটি হলাম। আমার কাছে মনে হতো একটা ভালো মানুষের ডিকশেনারী। আপনি চলে গেলেন আমাদের কে রেখে। আল্লাহ উনাকে জান্নাত নসিব করুন। এবার বুঝি আমাদের পালা, ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি সবার কাছে ক্ষমা করবেন। বাচ্চু ভাই আমার জীবনের ছবি হয়ে থাকবেন।

চিত্রনায়ক রিয়াজ লিখেন, আর কখনও রাতে ফোন করে কেউ বলবে না আহারে তোমাকে অনেক রাতে ফোন দিলাম…ওপারে ভালো থাকুন বাচ্চু ভাই।

অভিনেতা শতাব্দী ওয়াদুদ লিখেন, ওপারে ভালো থাকবেন সাদেক বাচ্চু ভাই! সিনেমায় আপনার সাথে অভিনয়টা আর করাই হলো না! আল্লাহ আপনাকে বেহেশত দান করুক! আমিন!

অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী লিখেন, চিরবিদায় প্রিয় অভিনেতা-প্রিয় মানুষ সাদেক বাচ্চু ভাই। খুব ভালো অভিনেতা হিসাবে আপনি আমার কাছে স্মরণীয় থাকবেন চিরকাল। আপনার সাথে কাজ করা হয়নি আফসোস থেকে গেলো! পরপারে ভালো থাকবেন। শ্রদ্ধা।

অভিনেত্রী গোলাম ফরিদা ছন্দা লিখেন, বেশি দিন আগের কথা নয় সতীর্থ কে বলেছিলেন- ‘ছন্দা বলে যে আমার চেহারার আদল ওর বাবার মতো, ওকে আমার ভালোবাসা জানিও’ সাদেক বাচ্চু আংকেল এটা কি হলো! আর দেখা হলো না আপনার সাথে! কেন আপনারা এমন নিষ্ঠুর হয়ে যাচ্ছেন, আমরা তো আস্তে আস্তে ছায়া হীন হয়ে পরছি! যেখানেই থাকুন  শান্তি তে থাকুন হে শিল্পী, চির শান্তিময় হোক এ নিদ্রা।

অভিনেত্রী শাহনাজ খুশি লিখেন, এক সপ্তাহে তিনজন গুণী অভিনেতার প্রস্থান! এমনিতেই আমাদের অভিনয় জগতে এমন প্রবীন, অভিজ্ঞ অভিনয় শিল্পী তেমন নাই বললেই চলে! তার মধ্যে ভয়াবহ এ মৃত্যুর ছোবল মাত্র সাতদিনের মধ্যে ছিনিয়ে নিলো এমন বিজ্ঞজনদের! জানি না সামনে আর কি কি অপেক্ষা করছে। আপনাদের এ প্রস্থান এক বিরাট শূন্যতা তৈরি করলো! গভীর শোক এবং সম্মান জানাই আত্মার শান্তি কামনা করি।

চিত্রনায়ক আলেকজান্ডার বো লিখেন, আমাদের একজন মানুষই ছিলেন যার সাথে মন খুলে কথা বলা যেত যার কাছ থেকে বুদ্ধি, অভিনয়ের শিক্ষা নিতাম। যিনি ভালো পরামর্শ দিতেন সে আজ আমাদের মাঝ থেকে চলে গেলেন চিরবিদায় নিয়ে সবাই তার জন্য দোয়া করবেন। আমিন।

চিত্রতারকা শাকিব খান লিখেন, সাদেক বাচ্চু ভাই শুধু আমার সহশিল্পী ছিলেন না, তিনি ছিলেন চলচ্চিত্রে আমার অভিভাবকদের একজন। আমাকে তিনি সবসময় আগলে রেখে ভালোর পথে এগিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিতেন। মানসিক সাপোর্ট দিয়ে সাহস যোগাতেন। নিয়মিত আমার খোঁজখবর রাখতেন। সহশিল্পী কিংবা অভিভাবকত্বের বাইরেও বাচ্চু ভাই আমার প্রতি এক অদৃশ্য মায়া দেখাতেন। তিনি আর নেই শোনা মাত্রই আমার ভেতরটা মোচড় দিয়ে ওঠে। চলচ্চিত্রে এতগুলো বছর ধরে কাজ করে অনেকের সঙ্গে পরিচয় ও সুসম্পর্ক হলেও সবাই আপন হতে পারেনি। হাতে গোনা কিছু মানুষ হৃদয়ে ঠাঁই পেয়েছে। তাদেরই একজন ছিলেন সাদেক বাচ্চু ভাই। তার সঙ্গে মন খুলে কথা বলতাম। সবকিছু শেয়ার করতাম। তিনি আমার ভালো কাজে যেমন উৎসাহ দিতেন, তেমনি মন্দ শুনলে খুব কষ্ট পেতেন। এমন গুণী অভিভাবক আর কোথায় পাবো! গত ২০ বছর ধরে আমরা একসাথে পথ চলছি। সংস্কৃতির সব মাধ্যমে সফল হওয়া এ মানুষটিকে আজ হারালাম। একজন সহকর্মী হারানোর চেয়ে আমার ব্যক্তিগত বেদনা লাগছে। মনে হচ্ছে, আমি আমার কোনো এক স্বজনকে হারালাম। পরম শ্রদ্ধায় সাদেক বাচ্চু ভাইয়ের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। যেখানেই থাকবেন দোয়া করি শান্তিতে থাকবেন।

শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান লিখেন, আর পারলাম না। লাইফ সাপোর্ট খুলে নেওয়া হলো। ওপারে ভালো থাকবেন বাচ্চু ভাই।

অভিনেতা মারুফ আকিব লিখেন, খুবই দুঃখের খবর বাচ্চু ভাই আর নেই। দয়া করে সবাই তার জন্য প্রার্থনা করুন।

চিত্রনায়িকা রত্ন লিখেন, অনেক বেশি প্রিয় মানুষ ছিলেন আপনি। কত পরিকল্পনা ছিল আপনাকে নিয়ে,বলেছিলেন আমি দাওয়াত দিব কবে একদিন ডাল ভাত খাবেন সবাই মিলে, আর হলো না!

আনিসুর রহমান মিলন লিখেন, অভিনয়শিল্পী সাদেক বাচ্চু ভাই না ফেরার দেশে চলে গেলেন। আপনার আত্মার শান্তি কামনা করি।

চিত্রনায়ক নিরব লিখেন, একে একে সব গুণী মানুষজন চলে যাচ্ছেন। তাদের চলে যাওয়া সত্যিই বেদনাদায়ক। সাদেক বাচ্চু যেমন একজন ভালো মানুষ তেমন গুণী একজন অভিনেতাও। ওপারে ভালো থাকবেন হে প্রিয় অভিনেতা।

চিত্রনায়িকা বুবলী লিখেন, আংকেল, আমার প্রত্যেকটি সিনেমাতেই সৌভাগ্য হয়েছিলো আপনার সাথে অভিনয় করবার। কি স্নেহ করতেন শুটিং এর ফাঁকেই একটু সুযোগ হলেই কত কত অভিজ্ঞতা শেয়ার করতেন। নানান সিনেমার গল্প বলতেন আর তার মাঝখানেই আবার বলতেন ‘মামনি, তোমার আন্টিকে একটা ফোন দিয়ে নেই দাঁড়াও, কথা বলো আন্টির সাথে, একদিন বাসায় এসে আন্টির সাথে দেখা করে, গল্প করো, ভালো লাগবে’। আন্টির সাথে ফোনে কথাও হয়েছিলো, যাবোও বাসায় বলেছিলাম কিন্তু আপনিই তো চলে গেলেন আংকেল। বাংলা চলচ্চিত্র সহ আমরা সবাই একজন অভিজ্ঞ গুণী শিল্পীকে হারালাম। ভালো থাকবেন আংকেল!

অভিনেত্রী জাহারা মিতু লিখেন, আগুন এর সেটে প্রথম দেখা। সালাম দেওয়ার পর কাছে ডেকে বললেন, ‘এটা আমার মেয়ে না?’ সাথে সাথেই পাশ থেকে একজন বলে উঠল ‘জ্বি’। তারপর কথা শুরু। প্রথম দিনেই এতো কাছে টেনে নিলেন। আব্বু মারা যাওয়ার পর ওই প্রথম কারো মুখে সারাদিনে এতোবার মা শব্দ শুনেছিলাম। হাহাকার লাগছে অনেক বাবা। আল্লাহর কাছে দুহাত তুলে দোয়া করি আপনার নেক আমলের পুরস্কার তিনি আপনাকে দান করুক। মানুষকে ভালোবাসার যে অসীম ক্ষমতা আপনার ছিলো তার জন্য যারা আপনাকে কাছ থেকে দেখেছেন তারা আপনাকে মনে রাখবে আজীবন। জানি না করোনা আর কতো জনকে কেড়ে নিবে এভাবে।

চিত্রপরিচালক গাজী মাহবুব লিখেন, ঝড়ে গেলো বাংলা চলচ্চিত্রের আরেকটি উজ্জ্বল নক্ষত্র জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা সাদেক বাচ্চু। আমরা সবাই দোয়া করি আল্লাহ্ যেন তাকে জান্নাত বাসী করেন। আমিন।

চিত্রপরিচালক শাহ আলম মন্ডল লিখেন, অনেক অজানা হয়নি জানা, অনেক কথা হয়নি বলা। রাব্বুল আলামিন আপনাকে ওপারে ভালো রাখুন-আমিন।

চিত্রপরিচালক দেবাশীষ বিশ্বাস লিখেন, ভালোবাসা জিন্দাবাদ, চল পালাই, শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ টু কত শত স্মৃতি আপনার সাথে, বলে শেষ করা যাবে না! শুধু সেগুলো আঁকড়ে ধরে এখন বাঁচতে হবে!

চিত্রপরিচালক শামীমুল ইসলাম শামীম লিখেন, আমার নাটক আর চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারে দেখা সবচেয়ে সজ্জন ব্যক্তি সাদেক বাচ্চু! এতো আন্তরিক আর নিরহংকারী মিশুক মানুষ এই সময়ে সত্যিই দূর্লভ! আমার পরবর্তী ছবিতে ঝিংকু বাবু চরিত্রটা আর করা হলো না ভাই। আমাদের কতো আড্ডা, কতো গল্পের স্মৃতি আমাকে ভাসাবে অনন্তকাল।

চিত্রনায়ক আসিফ নূর লিখেন, ‘এক পৃথিবী প্রেম’ চলচ্চিত্রে আমার বাবার চরিত্রে ভাগ্যক্রমে উনাকে পাই। তারপর থেকে উনি আমাকে নিজের সন্তানের মতোই ভালোবেসেছেন। আজ এই চলচ্চিত্র পরিবার এক বাবাকে হারালো, এবং আমি হারালাম আমাকে নিঃস্বার্থ ভাবে ভালোবাসার এক মানুষকে। ওপারে ভালো থাকুন বাবা।

মৌ খান লিখেন, বাবা আর তো কেউ মা বলে ডাকবে না। শুটিংয়ের ফাঁকে নজরুলের জীবনী শুনাবে না। অভিভাবক হয়ে পাশে থাকবে না। কিছু জিনিস মেনে নেওয়া যায় না, আপনার মৃত্যু সংবাদটা যদি মিথ্যা হতো। কেনো এভাবে চলে গেলেন বাবা? ওপারে ভালো থাকবেন বাবা।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
© All rights reserved © 2018 jamjamat.net
ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট : উইন্সার বাংলাদেশ