বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:২৯ পূর্বাহ্ন
Uncategorized

বছরে ৩৬ টি নাটক নির্মাণ করবো: মামুন

জমজমাট ডেস্ক
  • আপডেট সময় : বুধবার, ২৯ জুলাই, ২০২০

বাংলাদেশের মিডিয়া ইন্ডাস্ট্রির একটা বড় অংশের দর্শক মধ্য প্রাচ্যের প্রবাসীরা। প্রবাস জীবনে তাদের ভালো থাকা, ভালো লাগার অন্যতম অনুষঙ্গ এটি। সারাদিনের ক্লান্তি শেষে প্রবাসীরা বাংলাদেশের নাটক দেখেন, সিনেমা দেখেন। এর মধ্য দিয়েই তারা খুঁজে পান বাংলাদেশের ঘ্রাণ, ভালোবাসা। প্রায় সময়ই প্রবাসীদের জীবন নিয়ে, নানা ঘটনার গল্প নিয়ে দেখা যায় নাটক নির্মাণ হয়। সেসব দারুণ সাফল্যও পায়। তবে প্রবাসী দর্শকদের মাথায় রেখে কাজের পরিমাণ খুব কম। সেই ভাবনা নিয়েই প্রযোজনায় নেমেছেন দুবাই প্রবাসী জিয়াউল হক মামুন। দুবাইয়ে ব্যবসা করেন মামুন। ভালোবাসেন বাংলাদেশের নাটক-সিনেমা। সেই ভালোবাসা থেকে এবং প্রবাসীদের চাহিদা মাথায় রেখে এরইমধ্যে প্রযোজনা করে ফেলেছেন তিনটি নাটক। এবার তিনি বাড়াতে যাচ্ছেন স্বপ্নের পরিধি। প্রতি মাসে তিনটি করে এক বছরে মোট ৩৬টি নাটক নির্মাণের ঘোষণা এসেছে তার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ফক্স কমিউনিকেশনের ব্যানার থেকে।

এ প্রসঙ্গে মামুন বলেন, ‘প্রবাসী ভাইয়েরা বাংলাদেশের নাটক-সিনেমার দারুণ ভক্ত। এখানে কোনো সিনেমা মুক্তি পেলে দলে দলে সবাই দেখতে যান। এর আগে কিছু সিনেমা মুক্তি পেয়েছিলো। সেই প্রমাণ পেয়েছেন সেসব ছবির প্রযোজক-পরিচালকগণ। বাংলাদেশের নাটকও দারুণ প্রিয় প্রবাসীদের। কাজের ফাঁকে বা অবসরে দল বেঁধে সবাই নাটকে মজে থাকেন। তারা চান দেশের নাটকে তাদের স্বপ্ন, ভাবনা, যাতনার গল্প উঠে আসুক। এসব ভাবনা নিয়েই আমি প্রযোজনায় এসেছি। তিনটি নাটক বানিয়েছি আমি। এর ভেতর দুটি নাটক প্রচার হয়েছে। সেগুলো প্রবাসী কমিউনিটি ও বাংলাদেশের দর্শকদের কাছে বেশ গ্রহণযোগ্যতাও পেয়েছে। এটাই আমার প্রশান্তির জায়গা।’

নিজের দায়বদ্ধতার প্রসঙ্গ টেনে মামুন বলেন, ‘আমরা তো রেমিটেন্স যোদ্ধা। অক্লান্ত খাটুনির পয়সা দেশে পাঠাই। আমার কাছে মনে হয়েছে দেশের সাংস্কৃতিক খাতেও বিনিয়োগ করা উচিত যার যার জায়গা থেকে, সামর্থ্য অনুযায়ী। কারণ একটা দেশের সাংস্কৃতিক অবকাঠামো কেমন তার উপর ভিত্তি করেই ফুটে ওঠে সেই দেশের সামগ্রিক চিত্র। আমার মনে হয় এটি মাথায় রেখেই প্রত্যেকের উচিত শিল্প-সংস্কৃতিতে অর্থ বা মেধা যার যেটা আছে সেটা বিনিয়োগ করা। আমরা সবাই মিলে চেষ্টা করলে আমাদের দেশের নাটক-সিনেমার ইন্ডাস্ট্রি আরও শক্ত ও মজবুত অবস্থানে পৌঁছাবে।’

তার তিন সহযোগী ফারদিন বাপ্পি, নয়ন খান ও মাহাদি হাসান হিরার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘যে কোনো কাজেই ভালো ও বিশ্বস্ত সহযোগী দরকার। আমি এই তিনজনকে পেয়েছি মনের মতো। তাদেরকে নিয়ে আরও বড় পরিসরে বিনিয়োগ করতে যাচ্ছি দেশের নাটকে। সিদ্ধান্ত নিয়েছি প্রতি মাসে তিনটি করে নাটক প্রযোজনা করবো। যেগুলো নির্মাণ করবেন দেশের স্বনামধন্য পরিচালকেরা।’

মামুন জানান, ফক্স কমিউনেকশন থেকে সুজন বড়ুয়ার অফসাইড, ইমরাউল রাফাতের বিসিএস বাবু নাটক দুটি প্রচার হয়েছে। আর আতিফ আসলাম বাবলুর পরিচালনায় ‘টেডি বিয়ার’ নাটকটি কোনো বেসরকারি চ্যানেলে প্রচার হবে আসছে কোরবানি ঈদে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
© All rights reserved © 2018 jamjamat.net
ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট : উইন্সার বাংলাদেশ