মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৩৮ অপরাহ্ন

ফেঁসে যাচ্ছে ফেইসবুক পেইজ ‘নাগরিক টিভি’ অপরাধ চক্রের সদস্যরা

জমজমাট ডেস্ক
  • আপডেট সময় : শনিবার, ২৯ অক্টোবর, ২০২২

রঞ্জু সরকার

কানাডা ও আমেরিকায় বসে ‘নাগরিক টিভি’ নামের একটি ফেইসবুক পেইজের মাধ্যমে চাঁদাবাজি, ব্ল্যাকমেইলিং, মিথ্যাচার ও নানামাত্রিক অপরাধের অভিযোগে শেষ পর্যন্ত ফেঁসে যাচ্ছে এই ভয়ংকর অপরাধী চক্র। এরই মাঝে এই অপরাধচক্রের অন্যতম হোতা এবং আনসার আল ইসলাম নামের জঙ্গি গোষ্ঠীর সদস্য টিটো রহমানের বিরুদ্ধে কানাডার আদালতে মামলা হয়েছে। একইভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে এই চক্রের আরেক সদস্য নাজমুস সাকিবের বিরুদ্ধে মামলার প্রক্রিয়া চলছে। পাশাপাশি সাকিবের ভয়ংকর অপকর্ম সম্পর্কে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই-সহ আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোকে অবহিত করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে এই নাগরিক টিভি নামের অপরাধচক্র শ্রীলংকা গার্ডিয়ান নামীয় একটি ওয়েব সাইটে বাংলাদেশ ও ভারত সম্পর্কে দুটো বানোয়াট কল্পকাহিনী প্রকাশ করে। ওই কল্পকাহিনীর পেছনে আর্থিক সহায়তা দিয়েছে দণ্ডপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধীদের স্বজনেরা। এটির সাথে আরও জড়িত ছিলো ফ্রান্সে রাজনৈতিক আশ্রয়প্রাপ্ত কট্টর হিন্দু বিরোধী পিনাকী ভট্টাচার্য নামের এক ব্যক্তি যে কয়েক বছর আগে ওষুধ কারখানার আড়ালে মাদকদ্রব্য ইয়াবা ও যৌণ উত্তেজক ওষুধ উৎপাদনের অভিযোগে অভিযুক্ত হলে গোপনে বাংলাদেশ ছেড়ে পালিয়ে যায়। শ্রীলংকা গার্ডিয়ান নামীয় ওয়েব সাইটে প্রকাশিত বানোয়াট কল্পকাহিনীর সাথে আরো জড়িত ছিলো হাঙ্গেরী থেকে বহিষ্কৃত ও বর্তমানে বৃটেনে রাজনৈতিক আশ্রয় চাওয়া জুলকারনাইন সামি ওরফে ছিনতাইকারী সামি নামে আরেক দূর্বৃত্ত।

জুলকারনাইন সামি ওরফে ছিনতাইকারী সামি ২০০৬ সালে ঢাকার এলিফ্যান্ট রোড এলাকায় নিজেকে সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন ও র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের অফিসার পরিচয় দিয়ে মোবাইল ফোন ছিনতাই করতে গিয়ে ধরা খায়। পরবর্তীতে তাকে উত্তেজিত দোকান মালিকরা বেধড়ক পিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করলে সামির বিরুদ্ধে মামলা হয়।

শ্রীলংকা গার্ডিয়ান নামীয় ওয়েব সাইটে বাংলাদেশ ও ভারতের বিরুদ্ধে দুটো কল্পকাহিনী প্রকাশের পর এটি সম্পর্কে বিস্তারিত তদন্তের পর প্রভাবশালী ইংরেজী পত্রিকা ব্লিটজ এ একটি অনুসন্ধানী রিপোর্ট প্রকাশিত হয়, যেখানে দেখা যায় ওই ওয়েব সাইট মূলত আল কায়েদা এবং তামিল লিবারেশন টাইগার এলেম বা এলটিটিই এর প্রচার মাধ্যম। ব্লিটজ এর রিপোর্টের প্রেক্ষিতে শ্রীলংকা গার্ডিয়ান তড়িঘড়ি করে বানোয়াট দুটো কল্পকাহিনীই মুছে ফেলে এবং প্রকাশ্যে ক্ষমা চায়। যদিও এরই মাঝে ওই ওয়েব সাইট সম্পর্কে তদন্তে নেমেছে শ্রীলঙ্কা ও ভারতের আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো। এরই ধারাবাহিকতায় ভারত ও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে জঘন্য গুজব ছড়িয়ে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টার অভিযোগে টিটো রহমান, নাজমুস সাকিব, পিনাকী ভট্টাচার্য, জুলকারনাইন সামি ওরফে ছিনতাইকারী সামির বিরুদ্ধেও ব্রিটেন, ফ্রান্স, আমেরিকা ও কানাডায় মামলা হতে পারে।

এদিকে, প্রভাবশালী ইংরেজী পত্রিকা ব্লিটজ এ প্রকাশিত ধারাবাহিক অনুসন্ধানী রিপোর্টের কারণে চাঁদাবাজ ‘নাগরিক টিভি’ ফেইসবুক পেইজের সাথে জড়িতরা রীতিমত তটস্থ হয়ে পড়েছে। এরা প্রায় প্রতিদিনই ব্লিটজ এবং এর সম্পাদকের বিরুদ্ধে বানোয়াট অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। জানা গেছে, এসব অপপ্রচারের পেছনে কলকাঠি নাড়ছে লন্ডনে অবস্থানরত ইন্টারপোল ওয়ান্টেড জঙ্গী শহীদ উদ্দিন খান।

সম্প্রতি ইস্টার্ন হেরাল্ড নামের ভারতীয় নিউজ পোর্টালে শহীদ উদ্দিন খান সম্পর্কে কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশিত হয়েছে। তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে ইস্টার্ন হেরাল্ড বলেছে, বাংলাদেশে গণপ্রতারণার অভিযোগে অভিযুক্ত ডেসটিনি গ্রুপ নামীয় এমএলএম কোম্পানির অন্যতম বেনিফিশিয়ারি এই শহীদ। ২০১১-২০১২ সালে ব্লিটজ পত্রিকায় ডেসটিনির প্রতারণার বিষয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশের প্রেক্ষিতে এটির বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন ব্যবস্থা নিলে শহীদ উদ্দিন খান চরম ক্ষেপে যায় ব্লিটজ সম্পাদকের ওপর। প্রথমেই সে ব্লিটজ সম্পাদককে নানাভাবে হুমকিধমকি দিয়ে ব্যর্থ হবার পর শহীদ তার এক কর্মচারী সাজ্জাদ হোসেনকে দিয়ে ব্লিটজ সম্পাদকের বিরুদ্ধে রাজধানীর দক্ষিণখান থানায় একটি মিথ্যে প্রতারণার মামলা দায়ের করিয়ে গভীর রাতেই তাকে গ্রেফতার করায়। এরপর শহীদ উদ্দিন খান তার লোকজনকে থানায় পাঠায় হাতকড়া পরিয়ে ব্লিটজ সম্পাদকের ছবি তুলতে। এর কয়েক ঘণ্টা পর শহীদ উদ্দিন খানের নির্দেশে ব্লিটজ সম্পাদককে RAB-1 সদর দপ্তরে নিয়ে আরেক দফা ছবি তোলা হয় এবং তাকে আদালতে নেয়ার সময় গুলি করে হত্যা করতে র্যাবের এক সাব ইন্সপেক্টরকে (যে আগে দক্ষিণখান থানায় কর্মরত ছিলো) মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ভাড়া করা হয়। সীমাহীন অপকর্মের মাধ্যমে শতশত কোটি টাকার মালিক বনে যাওয়া শহীদ উদ্দিন খান ও তার সঙ্গীরা জঙ্গিবাদের সাথে জড়িয়ে পড়লে এদের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হলে পরিবারসহ ২০১৮ সালে শহীদ দুবাই হয়ে ব্রিটেনে পালিয়ে যায়। তার অন্যতম সহযোগী সাজ্জাদ হোসেন পালিয়ে যায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে।

ইস্টার্ন হেরাল্ড এ এই চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশের পর এরই মাঝে এবিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে।

বাংলাদেশের অভ্যন্তরে দেশ বিরোধী তথ্যসন্ত্রাসীদের অপতৎপরতা

‘নাগরিক টিভি’, শহীদ উদ্দিন খান, জুলকারনাইন সামি ওরফে ছিনতাইকারী সামির বাংলাদেশীয় সহযোগীরা এরই মাঝে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ্যে সরকার বিরোধী অপতৎপরতা চালাতে শুরু করেছে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে শাহানা রশিদ শানু নামীয় এক নারী এবং তার দুই পুত্র সজল মাহমুদ অনি ও শ্যামল মাহমুদ অঞ্জন ক্রমাগত নাগরিক টিভি এবং জুলকারনাইন সামির বিভিন্ন পোষ্ট প্রকাশ্যেই সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে শেয়ার করছে। রাষ্ট্র বিরোধী চক্রের এসব সহযোগীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যবস্থার দাবি তুলছেন অনেকেই।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
© All rights reserved © 2018 jamjamat.net
ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট : উইন্সার বাংলাদেশ